মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১০:২৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ঘোষণা :

বাঁশখালীতে কুপিয়ে হত্যা এক, আহত শিশুসহ তিন।

 

চট্টগ্রামের বাঁশখালীর শিলকূপ ইউনিয়ন আজ সোমবার (১২ জুলাই) সকাল ৭ টার দিকে টাইমবাজারের পশ্চিমে মোস্তাক আহমদের বাড়ীতে এ ঘটনাটি ঘটেছে। এ ঘটনায় নিহত হয় মোস্তাক আহমদের স্ত্রী ফাতেমা বেগম (৪০)। গুরুতর আহত হয় ফাতেমার কন্যা পাখি আক্তার (২০), তাদের বাড়ীতে থাকা আত্মীয় রাবেয়া বেগম (৩০) ও তার কন্যা বৃষ্টি (১০)।

ঘটনাস্থল থেকে আহতদের প্রথমে বাঁশখালী উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে তাদের অবস্থা আশংকাজনক হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদেরকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। চমেক নিয়ে যাওয়ার পথে ফাতেমার মৃত্যু হয়েছে বলে জানান তার ছেলে বাদশা।

বাদশা মুটোফোনে বলেন, আমার মা’কে দা দিয়ে কুপিয়ে কুপিয়ে হত্যা করল। চট্টগ্রাম শহরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় আমার মা মারা গেছে তবে আমার পরিবারের অন্য সদস্য গুলো ও আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছে। তাদের কে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে বলে দিয়েছে। আমি এটার সুষ্ঠু বিচার চাই।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত যুবক মু. এহছান (২৫) একই ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ড মাইজ পাড়া মেহেরজান বাপের বাড়ীর ইব্রাহীম প্রকাশ বদরইগ্যার পুত্র। এলাকাবাসীর অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ফাতেমা বেগম হাজিরা দেখার কাজ করে। তার কাছে এহছান নামের যুবকটি ফাতেমার কাছে ডাব পরার জন্য আসেন। এহছান ফাতেমাকে বলেন, আমি এক মেয়েকে ভালোবাসী। তাকে আমি পেতে চাই। কিন্তু ফাতেমা ডাব পরা দিতে অসম্মতি জানালে মুহূর্তেই ক্ষীপ্ত হয়ে বাড়ীতে দা দিয়ে প্রথমে ফাতেমাকে এলোপাথারি কোপিয়ে রক্তাক্ত করে। পরে বাড়ি থেকে বের করে রাস্তায় দা দিয়ে ঘাড়ে, পিঠে, মাথায় যখম করে। বাধা দিতে গিয়ে পরে বাড়িতে থাকা আরো তিনজনকে কুপিয়ে জখম করে সে।

গৃহকর্ত্রীকে দা দিয়ে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে খুন করার অভিযোগ উঠল যুবকের বিরুদ্ধে। বাঁধা দিতে গিয়ে মেয়ে সহ গুরুতর আহত হয়েছে অন্তত আরো তিনজন। এমন ঘটনায় হতম্ব এলাকাবাসী দোষীদের উপযুক্ত ও কঠোর শাস্তি দাবি করেছেন।

উক্ত ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বাঁশখালী থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি)সফিউল কবির মুটোফোনে জানায়, বাঁশখালীর শীলকূপ ইউনিয়নে এক মহিলাকে দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করল। মূলত ঘটনাটি ঘটেছে যে নিহত হয়েছে সে তাবিজ দিত। যে খুন করল সে তাবিজ নিয়েছিল। আজ সকালে একটা ডাবের পানি পরা নিয়ে ডাবটি কাটার জন্য দিলে তাকে উক্ত দা দিয়ে কুপিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে।এই ঘটনায় একজন নিহত হয়েছে আহত হয়েছেন তিন জন। তবে ঘটনাস্থলে গিয়ে সাথে সাথে হত্যা কারীকে আটক করেছে পুলিশ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমরা